• A-AA+
  • NotificationWeb

    Title should not be more than 100 characters.


    0

WeatherBannerWeb

Asset Publisher

জুহু

জুহু একটি উপকূলীয় স্থান যা পশ্চিম পশ্চিম মহারাষ্ট্রের মুম্বাই শহরতলিতে অবস্থিত। জুহু শহরটি মুম্বাইের সবচেয়ে সমৃদ্ধশালী মধ্যে অন্যতম অন্যতম বলিউডের বিখ্যাত ব্যাক্তিরা এই শহরে।। মুম্বাই এবং তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় মানুষদের সাপ্তাহিক সাপ্তাহিক কাটানোর এটি একটি জনপ্রিয়।। 

জেলা/অঞ্চল

মুম্বাই জেলার শহরতলিতে, মহারাষ্ট্র, ভারত।

ইতিহাস

উনবিংশ শতাব্দীতে জুহু নামক একটি দ্বীপ ছিল। সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে কয়েক মিটার উপরে সালসেটের পশ্চিম উপকূলে এটি একটি দীর্ঘ, সঙ্কীর্ণ বালুতট। পরবর্তীকালে এটিকে পুনরুদ্ধার করে মুম্বাইয়ের ভূখণ্ডের সাথে যুক্ত করা হয়। ১৯২৮ সালে ভারতের প্রথম সিভিল বিমানবন্দর এখানে প্রতিষ্ঠিত হয়। জুহু সমুদ্র সৈকতটি বার্ষিক গণেশ বিসর্জন অনুষ্ঠানের জন্য শহরের জনপ্রিয় স্থান মধ্যে অন্যতম অন্যতম অন্যতম অন্যতম যেখানে ভক্তের হয়। বিশাল মিছিলের মাধ্যমে ভক্তগন বিভিন্ন গণেশের মূর্তি মূর্তি সমুদ্র সৈকতে উপস্থিত হয় বিসর্জনের।। 

ভূগোল 

জুহু সমুদ্র সৈকতটি মহারাষ্ট্রের পশ্চিম অঞ্চলে মালাদ মালাদ এবং আরব সাগরের মেথি নদীর মাঝে।। এর উত্তর দিকে ভার্সোভা সমুদ্র সৈকত রয়েছে। 

আবহাওয়া/জলবায়ু

বৃষ্টিপাত এই অঞ্চলের প্রধান বৈশিষ্ট্য বৈশিষ্ট্য কঙ্কন কঙ্কন সব চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয় হয় হয় হয় ২৫০০ ২৫০০ ২৫০০ মিমি মিমি মিমি মিমি থেকে ৪৫০০ মি সময়ও আর্দ্র এবং থাকে থাকে। এই মরশুমে তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি পর্যন্ত পৌঁছায়।।
গ্রীষ্মকালে প্রচণ্ড গরম এবং আর্দ্রতা হয় এবং এবং সময়ে তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত।।
এই অঞ্চলে শীতকালে আবহাওয়া তুলনামূলকভাবে থাকে থাকে (প্রায় ২৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস সেলসিয়াস), এবং আবহাওয়া শীতল এবং থাকে।

করণীয়

জুহু সমুদ্র সৈকত বিভিন্ন জল ক্রীড়ার জন্য যেমন যেমন - বেনানা বোট রাইডস, জেট স্কিইং, প্যারাসেলিং, বাম্পার, ফ্লাই ফিশিং।
গান্ধী গ্রাম সমুদ্র সৈকতের উত্তর প্রান্তে অবস্থিত অবস্থিত এটি এটি এমন জায়গা যেখানে বাস্কেটবল বাস্কেটবল বাস্কেটবল বাস্কেটবল বাস্কেটবল ক্রিকেট এবং ফুটবল খেলতে।
জুহু বিচে ঘোড়ার পিঠে চড়া, উঠের পিঠে চড়ার উত্তেজনাপূর্ণ কার্যক্রমেরও ব্যবস্থা আছে।
এছাড়াও এখানে যারা আসে তারা জগিং, লাফ দড়ি, সাইকেল চালানো এবং যোগ করে থাকে।

নিকটতম পর্যটন কেন্দ্র 

• ইসকন মন্দিরঃ ইসকন মন্দিরটি রাম হরে কৃষ্ণ মন্দির নামে পরিচিত। মার্বেলের তৈরি সুন্দর এই মন্দিরটিতে করার করার অগণিত হল ঘর রয়েছে। 
• ফিল্ম সিটিঃ ফিল্ম সিটি জুহু থেকে ১৪.২ কিমি দূরত্বে।। এটি মুম্বাই জেলার পূর্ব গোরেগাঁও শহরে অবস্থথতত ফিল্ম সিটিকে দাদসাহেব ফালকে চিত্রনগরিও বলাাेইই ফিল্ম সিটিতে বেশিরভাগ বলিউড সিনেমার হয় হয়, এটি স্টুডিও, থিয়েটার, রেকর্ডিং রুম দ্বারা।
• শ্রী সিদ্ধিবিনায়ক মন্দিরঃ গণেশের এই মন্দিরটি জুহু বিচ ১৬ কিমি দক্ষিনে প্রভাদেবী এলাকায়।। এটি মুম্বাইয়ের সমৃদ্ধশালী মন্দির গুলির অন্যতম যা আনুমানিক অষ্টাদশ শতাব্দীতে নির্মিত।
• পোয়াই হ্রদঃ জুহু বিচ ১৫ কিমি দূরত্বে অবস্থিত পোয়াই হ্রদ। ব্রিটিশ সরকার দ্বারা নির্মিত এই একটি কৃত্রিম হ্রদ।। হাঁস, মাছরাঙা, ফ্যালকনের মত পাখি প্রায়শয়ই এই হ্রদে আসে।
• সঞ্জয় গান্ধী জাতীয় উদ্যানঃ জুহু বিচ থেকে এই জাতীয় উদ্যানটি ১৯ কিমি দূরে।। মুম্বাইবাসির কাছে সপ্তাহান্তে ঘোরার জন্যে একটি আদর্শ জায়গা। সঞ্জয়় গান্ধী জাতীয় উদ্যানে অসংখ্য প্রাণী প্রাণী, পাখি এবং রয়েছে।। 

খাবারের বিশেষত্ব এবং হোটেল 

স্থানীয় জলখাবারের বিভিন্ন স্টল রয়েছে যেমন - ফুচকা, ভেলপুরি, পাওভাজি ইত্যাদি। এছাড়া আরও স্থানীয় খাবারের ছোটো খাটো দোকান রইয এর পাশাপাশি দক্ষিণ ভারতের খাবারের যেমন রয়েছে তেমনই চাইনিজ খাবারের দোকানও।

হোটেল এবং কাছাকাছি থাকার সুবিধা / হাসপাতাল / পোস্ট
অফিস / পুলিশ স্টেশন

জুহু সৈকতের আশেপাশে অসংখ্য হোটেল রয়েছে।
হাসপাতালগুলো সমুদ্র সৈকতের আশেপাশে রয়েছে।
নিকটতম পোস্ট অফিসটি ১.৬ কিমি দূরত্বে অবস্থিত।
তারা রোড পুলিশ স্টেশন ০.৭৫ কিলোমিটার দূরে অবস৿দ

ভ্রমণের নিয়মকানুন এবং সময়, পরিদর্শনের আদর্শ সময় মাস মাস 

জায়গাটিতে আপনারা সারা বছরই ঘুরতে জেতে পারেন। তবে জুহু সমুদ্র সৈকতে যাওয়ার সময় অক্টোবার থেকে ফেব্রুয়ারী। তবে বর্ষাকালে মুম্বাই পরিদর্শনে না যাওয়াই ভালো সেই সময় সমুদ্র সৈকতে বন্যা হওয়ার ঝুঁকি ঝুঁকি।
যেহেতু গ্রীষ্মকালে প্রখর গরম থাকে ভোরের দিকে দিকে সন্ধ্যে বেলায় ভ্রমন করাই।।

এলাকায় যে যে ভাষায় কথা বলা হয়

ইংরাজি, হিন্দি, মারাঠি